ঋতুস্রাবের কুসংস্কার ও মারমা সমাজ

ঋতুস্রাবের কুসংস্কার ও মারমা সমাজ

প্রেক্ষাপট : পার্বত্য চট্টগ্রামে মারমা সমাজে পিরিয়ড শব্দটি একটি ট্যাবুর নাম।

মারমা সমাজের সাধারণ একটি দৃশ্য; যখন কোন নারীর ঋতুস্রাব হয় তখন তাঁদেরকে রান্নাঘর থেকে দুরে রাখা হয়, রান্না করতে দেয়া হয়না বা রান্না করলেও বাড়ির কর্তারা বিশেষ করে পুরুষ সদস্যরা সেই খাবার গ্রহন করেন না।
ক্যং বা বিহারে সামাজিকভাবে নিষিদ্ধ করা হয়। কিন্তু কেন? সে কি এমন অপরাধ করেছে যে তাঁকে এমনভাবে সামাজিক কর্মকাণ্ড থেকে আলাদা করে থাকতে হয়? মানসিকভাবে অত্যাচার থেকে শুরু করে তাঁকে মানসিক ভাবে অত্যাচারের সম্মুখীন হতে হয়।
তাহলে এই ঋতুস্রাব কি এতটাই ঘৃণনীয় অপরাধ?

আমাদের পার্বত্য চট্টগ্রামে মারমা সমাজে বিভিন্ন অঞ্চলে হয়তো অনেকেই বলবেন যে, তাঁদের ঘরে বা পরিবারের কেউ এসব মানেন না! কিন্তু প্রান্তিক অঞ্চলগুলোতে এমন অনেক পরিবার আছে যারা ধর্মীয় বা সামাজিক দৃষ্টিকোণ থেকে এসব কুসংস্কার এখনো মেনে চলেন।

ঋতুস্রাব নিতান্তই একটি স্বাভাবিক বিষয় এবং প্রাকৃতিক ঘটনা। সকালে সময় হলে যেমন ঘুম ভাঙ্গে, রাত হলে ঘুম আসে, না খেলে ক্ষুধা লাগে।
শারীরিক বিপাক ক্রিয়ার পর মূল মূত্র ত্যাগকরণ যেমন প্রাকৃতিকভাবে আমরা বলে বা করে থাকি, পিরিয়ডও ঠিক তেমনই নারীর শরীরের শারীরিক প্রক্রিয়া। প্রতিমাসে একবার ঋতুস্রাব হয়ে থাকে।

তাহলে মারমা সমাজে ঋতুস্রাবকে কেন এখনো ট্যাবু হিসেবে ধরা হয়?

তবে আমরা আশাবাদী আজকের প্রজন্ম এইসব কুসংস্কারের বিরুদ্ধে কথা বলছে, সচেতন হচ্ছে এবং খুব শীগ্রই আমরা এই আজকের প্রজন্ম এই ট্যাবু ভাঙার পথে হাঁটছি।

This Post Has 5 Comments

  1. Umraching Marma

    এই ওয়েবসাইট টা খোলার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাদের💓💓💓💓

    1. Hla Hla EE Marma

      সাথেই থাকুন 😘

  2. Salma

    Great job from great people hard luck 🤞 🤞🤞

  3. Salma

    Im so proud of u my Ee 😘

    1. Hla Hla EE

      Thanks dear Salma Ibrahimi 😘😘😘😘😘😘

Leave a Reply